শিরোনাম
Home » Top 10 » ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ছুরিকাঘাত, কলেজছাত্র নিহত

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ছুরিকাঘাত, কলেজছাত্র নিহত

সহপাঠীর উত্ত্যক্তের প্রতিবাদের জের ধরে খুলনা পাবলিক কলেজের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ফাহমিদ তানভীর রাজিনকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে একই এলাকার ছয় ছাত্রের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। এজাহারভুক্ত দু’জনসহ সাতজনকে আটক করা হয়েছে। এদিকে খুলনা পাবলিক কলেজের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কনসার্ট চলাকালে শনিবার দিবাগত রাতে ছুরিকাঘাতে নিহত লাশের ময়নাতদন্ত শেষে কলেজ মাঠে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে তার গ্রামের বাড়িতে দ্বিতীয় জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। এ ঘটনায় কলেজের সাবেক ও বর্তমান  ছাত্রদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

মুহূর্তের মধ্যে আনন্দের ক্যাম্পাস শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়ে। 
এদিকে নিহত রাজিনের পিতা শেখ জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে নগরীর খালিশপুর থানায় রোববার বিকালে মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় একই এলাকার ছয়জনকে আসামি করা হয়েছে। তারা হলো-মুজগুন্নী আবাসিক এলাকার মো. ফারুক হোসেনের ছেলে মো. ফাহিম ইসলাম মনি, বয়রা সেন্টাল রোডের লিয়াকত হোসেনের ছেলে মো. রয়েল, রায়েরমহল মুন্সিবাড়ি এলাকার মো. সাঈদ ইসলামের ছেলে মো. সনি ইসলাম আপন, মুজগুন্নী আবাসিক এলাকার আলমগীর হোসেনের ছেলে মো. আসিফ প্রান্ত আলিফ, বয়রা মেইন রোডের মো. জাকির হোসেন খানের ছেলে মো. জিসান খান ও বড় বয়রা মেইন রোড এলাকার মো. আহাদ হোসেনের ছেলে তারিন হাসান রিজভী। বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন, আসামি ফাহিম ইসলাম মনি বিভিন্ন সময় তার ছেলের সহপাঠী মৌমিতাকে প্রেম নিবেদনসহ উত্ত্যক্ত করতো। এতে রাজিন প্রতিবাদ করলে মনির সঙ্গে শত্রুতা শুরু হয়। এর জের ধরে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে তার ছেলেকে আটক করে আসামিরা ছুরি দিয়ে বুকে ও পেটে উপর্যুপরি আঘাত করে। এতে সে রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত রাজিনের পিতা শেখ জাহাঙ্গীর আলম মংলা বন্দরের অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারী এবং মাতা রেহেনা বেগম পুলিশ লাইন স্কুলের শিক্ষিকা। 
এ ব্যাপারে খালিশপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরদার মোশাররফ হোসেন বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর এলাকায় অভিযান চালিয়ে সাতজনকে আটক করা হয়েছে। এদের মধ্যে আলিফ ও রয়েল নামের দুই স্কুলছাত্র রয়েছে। এরা সরাসরি হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে স্বীকার করেছে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *