শিরোনাম
Home » Top 10 » বিশ্ব ইজতেমা দ্বিতীয় পর্ব শুরু কাল

বিশ্ব ইজতেমা দ্বিতীয় পর্ব শুরু কাল

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে। ২১শে জানুয়ারি রোববার দুপুরে আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে দুই পর্বের ইজতেমা। দ্বিতীয় পর্বের সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে যোগ দিতে জামাতবদ্ধ মুসল্লিরা বুধবার থেকেই তুরাগ তীরে ইজতেমা ময়দানে আসতে দেখা গেছে। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের সংখ্যা ও প্রস্তুতি আগের মতোই থাকবে বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের পুলিশ সুপার হারুন অর-রশিদ। ইতোমধ্যে শীত ও কুয়াশা উপেক্ষা করে দেশ-বিদেশের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা ইজতেমা মাঠে এসে উপস্থিত হচ্ছেন।

তারা জেলাভিত্তিক মাঠের খিত্তায় অবস্থান করছেন। মুসল্লিদের আল্লাহু আকবার জিকিরে ইজতেমাস্থলে আবারও ধর্মীয় পরিবেশ বিরাজ করছে। এ পর্বের বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে ও ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বুধবার ইজতেমা মাঠে গিয়ে দেখা গেছে জামাতবদ্ধ  হয়ে কয়েক হাজার মুসল্লি মাঠে নিজ নিজ খিত্তায় অবস্থান নিয়েছেন। বাস-ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহনে করে মুসল্লিরা মাঠে আসছেন। আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত মানুষের এ আগমন অব্যাহত থাকবে। তবে এ পর্বের ও মুসল্লিদের জন্য পুরা ইজতেমা মাঠকে ২৮ খিত্তায় ভাগ করা হয়েছে। দ্বিতীয় পর্বে জামাতবদ্ধ মুসল্লিরা বুধবার থেকেই ইজতেমাস্থলে আসতে শুরু করেন। এবারও ঢাকাসহ  ১৭ জেলার মুসল্লিরা ইজতেমায় যোগ দেবেন। ঢাকা জেলার মুসল্লি বেশি থাকায় এ পর্বে তারা ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন বলে জানিয়েছন ইজতেমার মুরব্বি গিয়াস উদ্দিন মানবজমিনকে জানান। ইজতেমা মাঠের মুরব্বি মাহফজুর রহমান জানান, দ্বিতীয় পর্বে কোন জেলার মুসল্লি কোন খিত্তায় থাকবেন তাও নির্দিষ্ট করা হয়েছে। ইজতেমাস্থলে নিরাপত্তা আগের পর্বের মত জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া মুসল্লিবেশে গোয়েন্দা পুলিশ মাঠে ও খিত্তার মুসল্লিদের মাঝে অবস্থান করছেন। মাঠের প্রবেশ পথে ও আশপাশের এলাকায় পুলিশ, র‌্যাব ও সাদা পোশাকধারী পুলিশসহ গোয়েন্দা বিভাগের সদস্যরা কড়া নজরদারি করছেন। প্রতিটি গেট ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা ও ভিডিও ক্যামেরা বসানো হয়েছে। মাঠের উত্তরপাশে স্থাপিত র‌্যাবের কন্ট্রোলরুম থেকে এসব ক্যামেরার মাধ্যমে পুরো এলাকা পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে।  র‌্যাব ছাড়াও পুলিশ ও জেলা প্রশাসন এবং গাজিপুর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ইজতেমা এলাকায় পৃথক কন্ট্রোলরুম স্থাপন করা হয়েছে। মাঠে প্রবেশকালেও মুসল্লিদের (সন্দেহভাজনদের) মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। আগামীকাল শুক্রবার বাদ ফজর থেকে আ’ম বয়ানের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে। প্রথম পর্বের এ দিনে (বৃহস্পতিবার) মানুষের যে চাপ ছিল দ্বিতীয় পর্বেও মুসল্লিদের চাপ লক্ষণীয়। প্রতিটি খিত্তা আগের মতো পরিপূর্ণ হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই মুসল্লিরা মাঠে চলে আসবেন বলে ইজতেমা আয়োজকদের ধারণা। 
গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ জাহিদ আহসান রাসেল জানান, বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে আসা প্রত্যেক মুসল্লির সার্বিক নিরাপত্তার ব্যবস্থাদি সরকার অত্যন্ত সুন্দর সুচারুভাবে সম্পন্ন এবং সর্বাত্মক ব্যবস্থা নিশ্চিত করেছে। জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মো. হুমায়ূন কবির বলেন, বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বের প্রস্তুতি আগের মতোই রয়েছে। ছিনতাই, সন্ত্রাসী ও বিভিন্ন অপরাধের জন্য ১২টি ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করবে। গাজীপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. আনিছুর রহমান জানান, বিশ্ব ইজতেমায় মুসল্লিদের স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম পূর্বের মতোই থাকছে। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী মোহাম্মদ রাহাতুল ইসলাম জানান, ইজতেমায় প্রথম পর্বে যে ব্যবস্থাদি গ্রহণ করা হয়েছিল তা আগের মতোই বাস্তবায়ন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *