Home » খেলাধুলা » ক্রিকেট » পাকিস্তানের কাছে লজ্জাজনক হার, বৃটিশ মিডিয়ায় ইংল্যান্ড দলের মুণ্ডুপাত…

পাকিস্তানের কাছে লজ্জাজনক হার, বৃটিশ মিডিয়ায় ইংল্যান্ড দলের মুণ্ডুপাত…

বৃটিশ মিডিয়ায় ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের মুণ্ডুপাত চলছে। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে পাকিস্তানের কাছে লজ্জাজনক হার কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না তারা। সর্বশেষ দুই-তিন বছর ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দুর্দান্ত ছিল দল ইংল্যান্ড। মাঠে নামলেই তাদের ব্যাটসম্যানরা ৩০০ এর বেশি রান করছিল। বোলাররা তুলে নিচ্ছিল উইকেট। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির গ্রুপপর্বেও তারা ছিল সবচেয়ে দুর্দান্ত। সবার আগে সেমিফাইনালের টিকিট কাটে এউইন মরগানের নেতৃত্বের দলটি। কিন্তু ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে তারা ‘আনপ্রেডিক্টেবল’ পাকিস্তানের কাছে হারলো ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। এতে হট ফেভারিট তকমা লাগানো দলটির বিদায় নিতে হলো ফাইনালের আগেই। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং- তিন বিভাগেই তারা পাকিস্তানের কাছে পরাস্ত হয়। আগে ব্যাটে গিয়ে তারা অলআউট হয় মাত্র ২১১ রানে। জবাবে পাকিস্তান জয় তুলে নেয় মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ৭৭ বল হাতে রেখে। ইংল্যান্ডের এমন হারের পর বৃটিশ মিডিয়ায় চলছে ক্ষোভ।
‘দ্য সান’ এর কলামিস্ট লেখেন, ‘সেখানে কী নারকীয় তা-ব হয়েছে? বিধ্বস্ত, অপমানিত, উত্তরহীনভাবে অবাক করে তারা চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি থেকে বিদায় নিয়েছে। কার্ডিফে তারা শুধু পাকিস্তানের কাছে হারেনি, তারা জঘন্য, হতাশাকর ও অনুপোযুক্ত ক্রিকেট খেলেছে। গত দুই বছর তারা সবচেয়ে আক্রমণাত্মক ও ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলে। একমাত্র দল হিসেবে গ্রুপপর্বে শতভাগ সাফল্য নিয়ে সেমিফাইনালে ওঠে তারা। কিন্তু ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে তাদের এমন লজ্জাকর নৈপুণ্য অপ্রত্যাশিত।’
‘দ্য মিরর’-এর ক্রিকেট লেখক ডিন উইলসন লেখেন, ‘ইংল্যান্ডের ওয়ানডে বিপ্লব কার্ডিফে হাঁটুমুড়ে বসে গেছে। পাকিস্তান তাদেরকে ঘর থেকে ঘরে ফিরিয়েছে।’
ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন নিয়মিত ‘দ্য টেলিগ্রাফ’- কলাম লিখছেন। সেমিফাইনাল থেকে ইংলিশদের বিদায়ের পর তিনি লেখেন, ‘ইংল্যান্ড ক্রিকেটের সবচেয়ে জঘন্য একটি দিন। গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলে তারা প্রতিপক্ষকে একটা বার্তা দিয়েছিল। কিন্তু এদিন উল্টো পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা তাদেরকে বার্তা দিয়ে দিয়েছে। দীর্ঘদিন আমি ইংল্যান্ডের ক্রিকেটের সঙ্গে জড়িত। আমার জীবনের অন্যতম হতাশার দিন এটি। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়ার চেয়ে এই বিদায় নেয়া বেশি কষ্টকর। এদিন তাদের সবকিছুতেই ভুল ছিল। পরিকল্পনা, দল নির্বাচন, কোচ- কোনোকিছুই ঠিক ছিল না। খুবই হতাশ, খুবই কষ্টকর।’
বৃটিশ ট্যাবলয়েড ‘ডেইলি মেইল’-এর ক্রীড়া লেখক পল নিউম্যান লেখেন, ‘এটা শুধু চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে হার নয়। এটা স্পষ্টত বিধ্বস্ত হওয়া। দীর্ঘদিন পর আইসিসি’র টুর্নামেন্টে কোনো শিরোপা জেতার সুযোগ হাতছাড়া করা। আট দলের টুর্নামেন্টে র‌্যাঙ্কিংয়ের অষ্টম দলের কাছে হার। যারা নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে বড় ব্যবধানে হেরেছিল।’  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *