Home » রাজনীতি » নির্বাচন » ভোটের সংখ্যা বলতে চান না প্রিজাইডিং অফিসার

ভোটের সংখ্যা বলতে চান না প্রিজাইডিং অফিসার

রাজধানীর মিরপুর ভাষানটেকে অবস্থিত হোমিওপ্যাথি মেডিকেল কলেজ কেন্দ্রে কতজন ভোটার ভোট দিয়েছেন তা গণমাধ্যমের সামনে বলতে চান না প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আশরাফুল আলম। তিনি বলেন, নিয়মে কি আছে আমি জানি না। তবে আমি মনে করি ভোট খুব স্পর্শকাতর একটি বিষয়। তাই সকাল থেকে এ পর্যন্ত কতজন ভোটার ভোট দিয়েছেন তা প্রকাশ করার প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না। কেন তিনি এটি মনে করেন এ প্রশ্নে তিনি জানান এটা আমার একান্ত নিজস্ব বিষয়। কিন্তু ভোট তো সার্বজনীন বিষয় এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান তাহলে লিখে দেন এখন পর্যন্ত ১২% ভোট পড়েছে। কিন্তু কতজন ভোটার ভোট দিয়েছেন তা আমি বলতে অপারগ। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই কেন্দ্রে মোট পাঁচটি বুথ রয়েছে। মোট ভোটার সংখ্যা ১৮৫২ জন। সকাল আটটা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এখানে মোট ভোট পড়ে ১৭২ টি।
কম ভোট পড়ার কারণেই তিনি ভোট সংখ্যা বলতে রাজি হননি বলে জানান সংশ্লিষ্ট আরেক কর্মকর্তা। এদিকে সকাল থেকে মিরপুর শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়া ও তালতলার চারটি ভোট কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে ভোটার উপস্থিতি অনেক কম। তবে ভোট কেন্দ্রের বাইরে অনেক মানুষ। আওয়ামী লীগ, যুবলীগ থেকে শুরু করে অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের ব্যাপক মহড়া দিতে দেখা গেছে। এমনকি অলিগলিতে মোটরসাইকেলে করে অনেককে ঘুরতে দেখা যায়।
স্থানীয় নেতারা বলেন, মূলত ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের নিয়ে আসার জন্যই তারা কাজ করছেন সকাল থেকেই। তারা ঘরে ঘরে গিয়ে ভোটারদের কেন্দ্রে আসার আহ্বান জানাচ্ছেন। এই তিন এলাকার বেশ কয়েকজন ভোটার বলেন তারা আমাদেরকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট দিতে আসার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন। তাদের অনুরোধের প্রেক্ষিতে ভোট দিতে এসেছি।
মিরপুর শেওড়াপাড়া অবস্থিত হালিম ফাউন্ডেশন স্কুলে দুটি কেন্দ্র রয়েছে। বুথ রয়েছে মোট ১২টি। এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার অধ্যাপক মো. আব্দুল হাই মানবজমিনকে বলেন, সকাল আটটা থেকে ১০টা পর্যন্ত ১২৫ জন ভোটার ভোট দিয়েছেন। আর ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ৭১ জন ভোটার ভোট দিয়েছেন। তিনি জানান, এই কেন্দ্রের আশেপাশে উৎসবমুখর পরিবেশ বজায় আছে। এখন পর্যন্ত কোন ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেনি। একই স্কুলের আরেক কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. কামাল ফারুক বলেন, এখানে মোট ভোটারের সংখ্যা ২৬৪৫ জন। দুপুর ১২ টা পর্যন্ত এই কেন্দ্রে মোট ভোট পড়েছে ২৯৯ টি।
অন্যদিকে শেওড়াপড়ায় পাশাপাশি দুটি কেন্দ্র অবস্থিত। একটি হচ্ছে ইস্ট ওয়েস্ট ইন্টারন্যাশনাল স্কুল আর একটা হচ্ছে নর্থ সাউথ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল। এ দুটি কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি অনেক কম দেখা যায়। ইস্ট ওয়েস্ট ইন্টারন্যাশনাল স্কুল কেন্দ্রে মোট ভোটারের সংখ্যা ২৭২৮ জন। এই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার আইয়ুব আলি জানান, সকাল ১১ টা পর্যন্ত ২০ জন ভোটার ভোট দিয়েছেন। প্রায় একই অবস্থা পাশে থাকা কেন্দ্র নর্থ সাউথ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২২৫৪ জন। সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু করে সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত এই কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ২৪ টি। কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার ড. মাইদুল ইসলাম বলেন, সকাল থেকে এখানে ভোটার উপস্থিতি অনেক কম। আশা করছি দুপুরের পর থেকে বাড়তে পারে। এদিকে সরজমিনে এসব এলাকার আশেপাশে ও অলিগলিতে বিভিন্ন নেতাদের কর্মী নিয়ে মহড়া দিতে দেখা গেছে। কেউ কেউ মোটরসাইকেল ব্যবহার করছেন আবার কেউ কেউ রিকশা নিয়ে বিভিন্ন এলাকা ঘুরছেন। এসব কেন্দ্রের বেশিরভাগ জায়গাই অন্য কোন দলের প্রার্থীদের পোলিং এজেন্ট দেখা যায়নি।
সুত্রঃ মানবজমিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *