Home » বিনোদন » বলিউড » অঙ্কিতা লোখান্ডে বলেন ‘এক ঘর থেকে অন্য ঘরে গেলেও স্বামীকে বলে যাই’

অঙ্কিতা লোখান্ডে বলেন ‘এক ঘর থেকে অন্য ঘরে গেলেও স্বামীকে বলে যাই’

বলিউড অভিনেত্রী অঙ্কিতা লোখান্ডে। দীর্ঘ দিন প্রেম করে ২০২১ সালে ব্যবসায়ী ভিকি জেইনকে বিয়ে করেন তিনি। কিছু দিন ধরে জোর গুঞ্জন উড়ছে, মা হতে যাচ্ছেন এই নায়িকা। এ গুঞ্জনের মাঝে শোনা যাচ্ছে, ভেঙে যাচ্ছে অঙ্কিতার সংসার। এসব বিষয় নিয়ে জোর চর্চা চললেও মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন তিনি। নীরবতা ভেঙে এসব বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন অঙ্কিতা।

পিংকভিলার সঙ্গে আলাপকালে অঙ্কিতা লোখান্ডে বলেন— ‘প্রথমে বিয়ে তারপর অন্তঃসত্ত্বা এবং বিয়েবিচ্ছেদের খবর। সত্যি বলতে, এসব বিষয়কে আমি পাত্তা দিই না। মানুষ এসব নিয়ে কথা বলবেই। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত ভালো কথা বলবে, সে পর্যন্ত ঠিক আছে। যখন তারা বিরক্তিকর কথা বলে, তখন তা আমার উপর প্রভাব ফেলে। যদি তারা আমার প্রেগন্যান্সি নিয়ে কথা বলে, তবে সত্যি আমি আনন্দিত। কারণ এটা নিশ্চিত একদিন আমি অন্তঃসত্ত্বা হবো। আর তখন খবরটি সবাইকে জানাব।’

বিয়েবিচ্ছেদের গুঞ্জন উড়িয়ে অঙ্কিতা লোখান্ডে বলেন, ‘স্বামী হিসেবে সে খুবই সহনশীল। এর চেয়েও বড় কথা সে আমার ভালো বন্ধু। সে জানে আমি আমার কাজকে কতটা ভালোবাসি। কাজ নিয়ে আমরা আলোচনা করি। চরিত্র নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলি। সে খুব খোলা মনের মানুষ।’

‘ভিকি আমাকে বলে, যা তোমার জন্য ভালো মনে করো সেটাই তোমার করা উচিত। সে আমার কর্মদক্ষতার উপর ভরসা করে এবং এভাবেই আমাকে সহযোগিতা করে যাচ্ছে। আমি কি করছি, তা তাকে জানাতে পছন্দ করি। তাকে সবকিছু বলতে ভালোবাসি। এমনকী এক ঘর থেকে অন্য ঘরে গেলেও ভিকিকে বলে যাই।’ বলেন অঙ্কিতা লোখান্ডে।

প্রয়াত বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়েছিলেন অঙ্কিতা। ‘পবিত্র রিশতা’ ধারাবাহিকের সেটে তাদের প্রেমের সম্পর্ক শুরু হয়। দীর্ঘ ছয় বছর একসঙ্গে ছিলেন। বিয়ের সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে তাদের ব্রেকআপ হয়। এরপর ভিকির সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান অঙ্কিতা; যা পরিণয় পেয়েছে।

রিয়েলিটি শো দিয়ে অঙ্কিতার শোবিজ অঙ্গনে পথচলা শুরু। এরপর ‘পবিত্র রিশতা’ টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করে খ্যাতি লাভ করেন তিনি। বড় পর্দাতেও অভিনয় করছেন। কঙ্গনা রাণৌত অভিনীত ‘মণিকর্ণিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে পা রেখেছেন এই অভিনেত্রী। টাইগার শ্রফ ও শ্রদ্ধা কাপুর অভিনীত ‘বাঘি-থ্রি’ সিনেমাতেও দেখা গেছে তাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *