সর্বশেষ
Home » রাজনীতি » আওয়ামীলীগ » ‘আমি মাথা নত করার মানুষ না’: শামীম ওসমান

‘আমি মাথা নত করার মানুষ না’: শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমান বলেন, আমি মাথা নত করার মানুষ না। অনেকে অনেক কিছু করেন, আমরা দেখি। টাকা ধরা পড়ে যাত্রাবাড়ী, মামলা হয় ফতুল্লায়। এগুলো বলতে চাই না। হতাশ হবেন না। এটা আমাদের নারায়ণগঞ্জ, আমরাই ঠিক করবো। আমার রাজনৈতিক জীবনে এত বিব্রত কোনোদিন হইনি। আমার ছোটবোন আইভীর মতো আমি সরাসরি প্রশাসনকে কিছু বলতে পারবো না। উনি বলে ফেলেন। কিছুদিন আগে বলেছেন, প্রশাসন ওখান (ফুটপাথ) থেকে টাকা কামায়।
গতকাল বিকালে নারায়ণগঞ্জের ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং ও ভূমিদুস্যতার বিরুদ্ধে আয়োজিত অরাজনৈতিক সংগঠন প্রত্যাশার আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এসব বলেন।
এরআগে অনুষ্ঠানে সাংবাদিক, আইনজীবী, রাজনৈতিক নেতাসহ বিভিন্ন বক্তা বক্তব্য রাখতে গিয়ে অভিযোগ করে বলেন, এখানে মাদকের বিরুদ্ধে অনুষ্ঠান যা প্রশাসনের করা উচিত। তারা করেনি আবার আসেওনি। কেন আসেননি তারা তার জবাব চান এবং এ ব্যাপারে শামীম ওসমানের পদক্ষেপ চান তারা। জবাবে শামীম ওসমান বলেন, আমি অনেক আগেই ডিসি অফিসে জানিয়েছিলাম। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছিল। নারায়ণগঞ্জে যারা আছেন তাদের জানা উচিত আমি শামীম ওসমান। আমি কারও দয়া দাক্ষিণ্যে চলি না। আমি রাজপথে তৈরি হওয়া মানুষ। প্রশাসনের
সদস্যরা আসেনি কেন এ প্রশ্ন পার্লামেন্টের অধিবেশনে তুলবো। যারা জনগণের চাকরি করতে নারায়ণগঞ্জে এসেছেন তারা এখানে আসেননি কেন? আমি তাদের দাওয়াত দিয়েছি। সরকারটা আওয়ামী লীগের। প্রশাসন আসেনি। আমি কী বলে আজকে উপস্থিত মানুষদের মনের জোর বাড়াবো। আমি মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার ভাইকেও বলেছি, তিনি চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে আছেন। আমার ছোটবোন আইভী হয়তো ব্যস্ত। আমি বলতে চাই সবাই আসুন। একসঙ্গে বসে একত্রে সুন্দর নারায়ণগঞ্জ রেখে যাই।

শামীম ওসমান বলেন, আগামী কয়েকদিন পর আমরা বিভিন্ন ওয়ার্ডে ৯০ হাজার লোক নিয়ে কমিটি করবো। প্রতি জনের সঙ্গে পরিবারের ৫ জন সদস্য যুক্ত হলে সাড়ে ৪ লাখ লোক হয়। লোক আরও বাড়বে। আর এই সাড়ে লাখ লোক যখন একসঙ্গে অনুষ্ঠান করবে। যদি বলে আমরা এখানে কাউকে চাই না। আমাদের নারায়ণগঞ্জ আমরাই ঠিক করবো। তখন কি করবেন? আগের মতো বক্তব্য দিতে চাই না। বয়স হয়েছে। ৬২ বছর বয়সের বক্তব্য দিলাম। ২৬ বছরের বক্তব্য নিয়েন না। সাবধান। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব, নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়ন, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দ, নাসিকের কাউন্সিলর, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, রাজনৈতিক দল, শিক্ষক ও চিকিৎসক পরিষদের নেতৃবৃন্দ, ইসলামী সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার কয়েক হাজার মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *