Home » বিশ্ব » বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে মিয়ানমারের সামরিক হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে আরাকান আর্মি

বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে মিয়ানমারের সামরিক হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে আরাকান আর্মি

সম্প্রতি মিয়ানমারের চিন রাজ্যের পালেতোয়া শহরে সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছে রাখাইনের জাতিগত সশস্ত্র গ্রুপ আরাকান আর্মি। বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের খুব কাছে একটি পাহাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার তারা এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বলেছে, পালেতোয়া শহরে গত বছরের শেষে এবং এ বছরের শুরুতে সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে তাদের তীব্র যুদ্ধ হয়। এরই এক পর্যায়ে ওই হেলিকপ্টারটি ভূপাতিত করেছে তারা। কয়েকদিন আগে একটি সামরিক হেলিকপ্টারের ধ্বংসাবশেষ ঘিরে দাঁড়িয়ে থাকা আরাকান আর্মির একটি ছবি পোস্ট করা হয়। তার পরই আরাকান আর্মি এ বিষয়টি পরিষ্কার করেছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন দ্য ইরাবর্তী।
আরাকান আর্মির নেতা খাইং থুখা বলেছেন, পালেতো টাউনে তীব্র যুদ্ধকালে আমরা একটি হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছি। পাই পাহাড়ে একটি সামরিক আউটপোস্টের কাছে ঘন জঙ্গলে তা বিধ্বস্ত হয়। ১৩ই জানুয়ারি কাংহা পাহাড়ে সামরিক বাহিনীর কৌশলগত কমান্ড ঘাঁটি দখলের পরই আমরা এই ধ্বংসবাশেষ শনাক্ত করি।
এই দুটি পাহাড়ই পালেতোয়া শহরের উত্তরে মিয়ানমার-বাংলাদেশ সীমান্তে। দুই মাস যুদ্ধের পর জানুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে পালেতোয়া শহর দখল করেছে আরাকান আর্মি। এই শহরটি চিন ও রাখাইন রাজ্যের সীমান্তে।
মিয়ানমার ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স আর্মি এবং তাং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মির সঙ্গে যুক্ত হয়ে আরাকান আর্মি গঠন করেছে ত্রিপক্ষীয় থ্রি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স। এই জোট গত অক্টোবর থেকে শান রাজ্যের উত্তরে ‘অপারেশন ১০২৭’ নামে সামরিক জান্তাবিরোধী যুদ্ধ তীব্র থেকে তীব্রতর করে তুলেছে। মধ্য নভেম্বরে এই অপারেশনের অংশ হিসেবে সামরিক জান্তার সেনাদের বিরুদ্ধে রাখাইনে আক্রমণ চালায় আরাকান আর্মি। ৪ঠা ফেব্রুয়ারি টেলিগ্রামে আরাকান আর্মি কিছু ছবি পোস্ট করে। এতে ত্রিপক্ষীয় ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্সের সদস্যদেরকে বিধ্বস্ত একটি হেলিকপ্টারের পাশে দাঁড়ানো অবস্থায় দেখা যায়। এতে প্রমাণিত হয় যে, আরাকান আর্মির পাশাপাশি জোটের অন্য দুটি গ্রুপও আরাকান রাজ্যে যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। ঠিক ওই সময়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হওয়া নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি আরাকান আর্মি। এই হেলিকপ্টারকে ভূপাতিত করার দাবি করলেও, কিভাবে তা করা হয়েছে, এক্ষেত্রে কি ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছে, তা প্রকাশ করেনি এই গ্রুপটি।
জানুয়ারিতে সশস্ত্র কারেন বিদ্রোহী গোষ্ঠী সেনাবাহিনীর আরেকটি হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত করে। তারা কারেন রাজ্যের মিত্র প্রতিরোধ বাহিনীর সঙ্গে একত্রে কাজ করছে। ওই হামলায় নিহত হন একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এবং হেলিকপ্টারে থাকা চারজন সেনা কর্মকর্তা। এ নিয়ে এক মাসে শাসকগোষ্ঠী বিরোধী প্রতিরোধ যোদ্ধাদের হাতে সামরিক জান্তা তিনটি এয়ারক্রাফট হারিয়েছে। এ পর্যন্ত প্রতিরোধ যোদ্ধারা সারাদেশে তিনটি যুদ্ধবিমান ও ৬টি সামরিক হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *