Home » বিশ্ব » জোট সরকার গঠনে রাজি হয়েছেন পিপিপি ও পিএমএলএন

জোট সরকার গঠনে রাজি হয়েছেন পিপিপি ও পিএমএলএন

দলীয় প্রধান নওয়াজ শরীফের নির্দেশে পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি ও সহসভাপতি, সাবেক প্রেসিডেন্ট আসিফ আলি জারদারির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ নওয়াজের (পিএমএলএন) নেতা শেহবাজ শরীফ। এই সাক্ষাতে নতুন জোট সরকার গঠন নিয়ে আলোচনা হয়েছে। নওয়াজ শরীফের বার্তা পৌঁছে দেয়া হয়েছে। তাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে একসঙ্গে কাজ করতে। বলা হয়েছে, তারা জোট সরকার গঠনে রাজি হয়েছেন। তবে এর আগে পিপিপির অন্যতম নেতা খুরশিদ শাহের ঘোষণার বিষয়ে কোনো আপডেট পাওয়া যায়নি। তিনি বলেছেন, যদি নওয়াজ শরীফ প্রধানমন্ত্রী হতে চান, তাহলে পিএমএলএনের সঙ্গে জোট করে সরকারে যোগ দেবে না পিপিপি। নির্বাচনের আগে থেকেই পিপিপির তরফ থেকে দাবি করা হচ্ছে, আগামী সরকারের প্রধানমন্ত্রী হতে চান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন জিও নিউজ।
পিপিপির শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে পাঞ্জাবে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মোহসিন নাকভির বাসভবনে সাক্ষাৎ করেন শেহবাজ শরীফ। বৈঠকের সূত্র দাবি করেছে, আসিফ আলি জারদারি ও শেহবাজ শরীফ পাঞ্জাব প্রদেশ এবং কেন্দ্রে সরকার গঠনে একমত হয়েছে।
এক্ষেত্রে দুটি দলই পরবর্তী বৈঠকে তাদের নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরবে। কিভাবে ক্ষমতা ভাগাভাগি হবে তা আগামী মিটিংয়ে চূড়ান্ত হবে। শুক্রবারের ওই মিটিং স্থায়ী হয় ৪৫ মিনিট। এদিন দেশকে রক্ষা করতে একটি জোট সরকার গঠনের জন্য সব রাজনৈতিক দলের প্রতি আমন্ত্রণ জানান সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ। এর আগে মডেল টাউনে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি ভাষণে নওয়াজ শরীফ দাবি করেন নির্বাচনে তার দল বৃহৎ দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন শেহবাজ শরীফ, দলের প্রধান সাংগঠনিক সংগঠন মরিয়ম নওয়াজ ও দলের অন্য নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *