Home » বিশ্ব » গণহত্যার অভিযোগ তুলে ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করছে কলম্বিয়া

গণহত্যার অভিযোগ তুলে ইসরাইলের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করছে কলম্বিয়া

গাজা উপত্যকায় ইসরাইলের কর্মকাণ্ডের কারণে দেশটির সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে চলেছে কলম্বিয়া। কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট গুস্তাভো পেট্রো বোগোটার বলিভার স্কোয়ারে এক সমাবেশে এই ঘোষণা করেন। গাজা যুদ্ধে ইসরাইলি সরকারের কর্মকাণ্ডকে “গণহত্যা” হিসেবে বর্ণনা করেন। ৭ই অক্টোবর হামাস ইসরাইলে আক্রমণ করে। যার ফলে ১২০০ জনেরও বেশি লোক মারা যায় এবং ২৫০ জনেরও বেশি মানুষকে জিম্মি করা হয়- যাদের মধ্যে অনেকেই আজ বন্দী অবস্থায় রয়েছে। ফিলিস্তানি ভূখণ্ডে এই আক্রমণের পাল্টা আক্রমণ শুরু করে ইসরাইল।

ফিলিস্তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় অনুসারে, বিচ্ছিন্ন ছিটমহলে ইসরাইল এখনো ৩৪,০০০ এরও বেশি লোককে হত্যা করেছে। ইসরাইলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ইসরায়েল কাটজ, কলম্বিয়ার ঘোষণার নিন্দা করেছেন এবং গাজা নিয়ন্ত্রণকারী হামাসকে পুরস্কৃত করার জন্য পেট্রোকে অভিযুক্ত করেছেন। তিনি বলেছেন “মানুষের কাছে পরিচিত সবচেয়ে ঘৃণ্য দানবদের পাশে ছিলেন পেট্রো।’ কাটজ পেট্রোকে “বিদ্বেষে ভরা, ইহুদি বিদ্বেষী প্রেসিডেন্ট বলেও অভিহিত করেছেন তিনি। একইসঙ্গে কাটজ বলেছেন যে, প্রেসিডেন্ট পেট্রোর এই পদক্ষেপ সত্ত্বেও উভয় দেশের মধ্যে সম্পর্ক উষ্ণ থাকবে।

অন্যদিকে হামাস পেট্রোর অবস্থানের প্রশংসা করেছেন। একটি বিবৃতিতে তারা বলেছে যে- ”এই সিদ্ধান্তটিকে আমাদের জনগণের আত্মত্যাগ এবং তাদের ন্যায্য বিজয় বলে মনে করা হচ্ছে।

‘অন্যান্য দেশকেও এই পথ অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছে হামাস।
দক্ষিণ আফ্রিকা এর আগে ইসরাইলকে গণহত্যা সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের জন্য অভিযুক্ত করেছে, জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতকে তারা বলেছে যে ইসরাইলের নেতৃত্ব এই পদক্ষেপ গাজায় ফিলিস্তিনিদের ধ্বংস করার অভিপ্রায়। যদিও এই অভিযোগকে অযৌক্তিক বলে উল্লেখ করেছে ইসরাইল। আন্তর্জাতিক বিচার আদালত পরবর্তীতে ইসরাইলকে গণহত্যা প্রতিরোধে “সমস্ত ব্যবস্থা গ্রহণ” করার নির্দেশ দেয়।

সূত্র: সিএনএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *